মেনু নির্বাচন করুন
১৯৭৬ সালের ১৩ নভেম্বর বাংলাদেশ সরকার কর্তৃক জারীকৃত অধ্যাদেশ নং ৮৮ অনুযায়ী বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন(বিপিসি) প্রতিষ্ঠিত হয়। ১ জানুয়ারি ১৯৭৭ তারিখ থেকে বিপিসি’র কার্যক্রম শুরু হয়। সে হিসেবে প্রতিষ্ঠানটি ৩৪ বছর অতিক্রম করে ৩৫ বছরে পদার্পন করেছে।

সাধারণ তথ্য

বিপিসি প্রদত্ত সেবা

১।         দেশে জ্বালানী তেলের চাহিদা নিরূপন।

২।         নিরূপিত চাহিদার বিপরীতে অপরিশোধিত ও পরিশোধিত জ্বালানী তেলের আমদানী পরিকল্পনা প্রণযন।

৩।         আমদানীর উৎস নির্ধারণ।

৪।         সময়মত আমদানী নিশ্চিতকরণ।

৫।         দেশের সর্বত্র জ্বালানী তেলের প্রাপ্যতা সহজলভ্য করার লক্ষ্যে পরিবহন ও মজুদ নিশ্চিতকরণ।

৬।         সরাদেশে সরকার নির্ধারিত মূল্যে জ্বালানী তেল বিপণন নিশ্চতকরন।

 

কোম্পানীতে ডিলার (ফিলিং ষ্টেশন) নিয়োগ পদ্ধতি

            নাগরিকত্ব সনদ, ব্যাংক স্বচ্ছলতার সনদ, ট্রেড লাইসেন্স, টিআইএন সার্টিফিকেট, আবেদনকারীর সত্যায়িত ছবি, সাইট প্ল্যান, মৌজা ম্যাপ, প্রস্তাবিত জমির 

            দলিলের সত্যায়িত কপি সহকারে সংশ্লিষ্ট কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবরে আবেদন করতে হবে।

*          আবেদনপত্র পাওয়ার পর বিপিসি প্রণীত নীতিমালার আলোকে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা সরেজমিনে সাইট পরিদর্শন করে ফিলিং ষ্টেশন স্থাপনের সম্ভাব্যতা বাছাইপূর্বক ৩০(তিন) দিনের মধ্যে কোম্পানীর হেড অফিসে প্রতিবেদন পেশ করবে।

*          মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তার প্রতিবেদন ফিলিং ষ্টেশন স্থাপনের অনুকূলে না হলে আবেদনকারীকে তা ৭(সাত) দিনের মধ্যে অবহিত করা হবে।

*          উপরোক্ত প্রতিবেদন ফিলিং ষ্টেশন স্থাপনের অনুকূলে হলে ৩০(ত্রিশ) দিনের মধ্যে প্রাপ্ত প্রতিবেদন যাচাইপূর্বক ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট কোম্পানীর পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদনের জন্য বোর্ড সভায় উপস্থাপন করবে।

*          প্রস্তাব পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদনের পর চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য ৩(তিন) দিনের মধ্যে বিপিসিতে প্রেরণ করা হবে।

বিপিসি কর্তৃক অনুমোদনের পর প্রস্তাবিত ডিলারকে স্থানীয় জেলা প্রশাসক থেকে অনাপত্তি সনদ গ্রহণ, বিস্ফোরক লাইসেন্স সংগ্রহ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতি গ্রহণপূর্বক নির্ধারিত ১(এক) বৎসরের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পাদনের জন্য ৭(সাত) দিনের মধ্যে পত্র প্রদান করা হবে।

*          নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পাদনের পর এবং কোম্পানী কর্তৃক চাহিদাকৃত সনদসমূহ প্রাপ্তির ১০(দশ) দিনের মধ্যে ফিলিং ষ্টেশন চালু করার জন্য ডিলারশীপ প্রদান করা হবে।

 

এজেন্সি/প্যাকড পয়েন্ট ডিলার নিয়োগ পদ্ধতিঃ

*          নাগরিকত্ব সনদ, বিস্ফোরক লাইসেন্স, এজেন্সী পয়েন্টের লে-আউট প্ল্যান্ট, আবেদনকারীর ছবি ট্রেড লাইসেন্স কপি, ব্যাংক সচ্ছলতার সনদের সত্যায়িত কপিসহ আবেদনপত্র কোম্পানীর বরাবরে দাখিল করতে হবে।

*          আবেদনপত্র পাওয়ার পর প্রস্তাবিত স্থান সরেজমিনে পরিদর্শন, ব্যবসায়িক সম্ভাব্যতা যাচাই বাছাই পূর্বক সংশ্লিষ্ট মাঠ কর্মকর্তা প্রতিবেদন ৩০(ত্রিশ) দিনের মধ্যে প্রদান করবে।

*          প্রাপ্ত প্রতিবেদন অনুকূলে হলে কোম্পানীর হেড অফিসে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহনের পর ৩০(ত্রিশ) দিনের মধ্যে ব্যবস্থাপনা পরিচালক কর্তৃক নিয়োগপত্র প্রদান করা হয়।

*          প্রাপ্ত প্রতিবেদন অনুকূলে না হলে ৭(সাত) দিনের মধ্যে আবেদনকারীকে অবহিত করা হবে।

সাংগঠনিক কাঠামো

কর্মকর্তাবৃন্দ

ছবিনামপদবিফোনমোবাইলইমেইল
মোঃ ইউনুসুর রহমানচেয়ারম্যান০৩১-৭২৬২০৭০১৭৫৫৫৮৭৬২০ chairman@bpc.gov.bd
এস এম রেজওয়ান হোসেনপরিচালক(বিপণন)০৩১-৭১৬৩৪৮০১৭৫৫৫৮৭৬২২director_mkt@bpc.gov.bd
মুহাম্মাদ নূরুল আলমপরিচালক(অর্থ)০৩১-৭১৬৩৫৫০১৭৫৫৫৮৭৬২৩director_fin@bpc.gov.bd
দীপক চক্রবর্ত্তীসচিব০৩১-৭১৬৪১৩০১৭৫৫৫৮৭৬২৪secretary@bpc.gov.bd
এস এম জুবায়ের হাসানসহকারী ব্যবস্থাপক(এমআইএস)০৩১-৭২১৮১২০১৯১২৮৬৮৯৬৭am_mis@bpc.gov.bd

কর্মচারীবৃন্দ

ছবিনামপদবি
মোঃ রফিকুল ইসলামউচ্চমান সহকারী
মোঃ আরিফুল হক মৃধাএল ডি এ (নিম্নমান সহকারী)
মোঃ শাহেদুল আলমএল ডি এ (নিম্নমান সহকারী)
মোঃ তুহিন কবিরএল ডি এ (নিম্নমান সহকারী)

প্রকল্পসমূহ

বিপিসি ১৯৭৭ সালের ১লা জানুয়ারী হতে বাণিজ্যিক কার্যক্রম শুরুকরে। এ সময় দেশে জ্বালানী তেলের চাহিদা ছিল ১০/১১ লক্ষমেঃটন। বর্তমানে দেশে জ্বালানী তেলের চাহিদা বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৬০.০০ (ষাট) লক্ষমেঃ টন। জ্বালানী তেলের আমদানী রপ্তানী এবং দেশের অভ্যন্তরে সুষ্ঠুভাবে ও নিরবচ্ছিন্নভাবে সরবরাহ নিশ্চিত করার দায়িত্ব বিপিসি’র। উক্ত দায়িত্বের অংশ হিসেবে বিপিসি নিম্নে বর্ণিত বিষয়ের উপর বিভিন্ন প্রকল্প প্রণয়ন ও বাসত্মবায়নে উদ্যোগ গ্রহণ করেছেঃ

 

Ø     জেটি নির্মাণ

Ø     পাইপ লাইন নির্মাণ

Ø     স্টোরেজ ট্যাংক নির্মাণ   

Ø     ডিপো সংশ্লিষ্ট ভবন নির্মাণ

Ø     ডিপো সংশ্লিষ্ট ফ্যাসিলিটিজ নির্মাণ

Ø     বিভিন্ন সময়ে রিফাইনারীর প্রয়োজনীয় সংস্কার

Ø     আধুনিক প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্প গ্রহণ

যোগাযোগ

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন(বিপিসি),

বিএসসি ভবন, সল্টগোলা রোড, চট্টগ্রাম।

পিএবিএক্স: ০৩১-৭১৬৩৩৬-৭, ৭১৬৩৩৪, ৭১৬৩২৮;

ফ্যাক্সঃ ৮৮-০৩১-৭২০১৪৭, ৭২৪৯১০।

কী সেবা কীভাবে পাবেন

বিপিসি'র সেবা সমূহ নিম্নে দেওয়া হলঃ

  • ১।        দেশে জ্বালানী তেলের চাহিদা নিরূপন।

    ২।        নিরূপিত চাহিদার বিপরীতে অপরিশোধিত ও পরিশোধিত জ্বালানী তেলের আমদানী পরিকল্পনা প্রণযন।

    ৩।       আমদানীর উৎস নির্ধারণ।

    ৪।        সময়মত আমদানী নিশ্চিতকরণ।

    ৫।        দেশের সর্বত্র জ্বালানী তেলের প্রাপ্যতা সহজলভ্য করার লক্ষ্যে পরিবহন ও মজুদ নিশ্চিতকরণ।

    ৬।       সরাদেশে সরকার নির্ধারিত মূল্যে জ্বালানী তেল বিপণন নিশ্চতকরন।

  •  

প্রদেয় সেবাসমূহের তালিকা

সিটিজেন চার্টার

‘‘ সিটিজেন চার্টার ’’

 

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন ক্রুড অয়েল, পরিশোধিত জ্বালানী তেল এবং লুব্রিকেটিং বেইজ অয়েল আমদানী করে থাকে। ক্রুড অয়েল ইষ্টার্ণ রিফাইনারী লিমিটেডে পরিশোধন করা হয়। এই পরিশোধিত ও আমদানীকৃত জ্বালানী তেল বিপিসি’র অধীনস্থ তিনটি তেল বিপণন কোম্পানীর মাধ্যমে বাজারজাত করা হয়।

 

তেল বিপণন কোম্পানীসমূহের প্রদত্ত সেবা প্রত্যক্ষভাবে ইউটিলিটি সার্ভিসের আওতায় পড়ে না। তবে কোস্পানীসমূহ ফিলিং ষ্টেশন ডিলার, প্যাক্ড পয়েন্ট ডিলার, এজেন্ট ও এলপিজি ডিলারদের মাধ্যমে পরোক্ষভাবে সেবা প্রদান করে থাকে।

 

ফিলিং ষ্টেশন ডিলার, প্যাক্ড পয়েন্ট ডিলার, এজেন্ট ও এলপিজি ডিলারগণ তাদের সংশ্লিষ্ট এলাকায় ভোক্তা পর্যায়ে সরকার নির্ধারিত মূল্যে পেট্রোলিয়াম পণ্য বাজারজাত করে থাকে।

 

ফিলিং ষ্টেশন ডিলার, প্যাক্ড পয়েন্ট ডিলার, এজেন্ট ও এলপিজি ডিলারদের নিকট পেট্রোলিয়াম পণ্যাদি সরবরাহ নিশ্চিতকরণ ও তাদের কার্যক্রম তদারকি করার জন্য প্রতি কোম্পানীর চারটি আঞ্চালিক অফিস ও বৃহত্তর জেলা পর্যায়ে অফিস এবং মোট ৫০টি সরবরাহ কেন্দ্র রয়েছে।

 

ডিপোসমূহ হতে গ্রাহকের চাহিদার বিপরীতে অগ্রিম মূল্য পরিশোধ সাপেক্ষে ইনভয়েসের মাধ্যমে পণ্য সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

 

বিপিসি প্রদত্ত সেবা

১।         দেশে জ্বালানী তেলের চাহিদা নিরূপন।

২।         নিরূপিত চাহিদার বিপরীতে অপরিশোধিত ও পরিশোধিত জ্বালানী তেলের আমদানী পরিকল্পনা প্রণযন।

৩।         আমদানীর উৎস নির্ধারণ।

৪।         সময়মত আমদানী নিশ্চিতকরণ।

৫।         দেশের সর্বত্র জ্বালানী তেলের প্রাপ্যতা সহজলভ্য করার লক্ষ্যে পরিবহন ও মজুদ নিশ্চিতকরণ।

৬।         সরাদেশে সরকার নির্ধারিত মূল্যে জ্বালানী তেল বিপণন নিশ্চতকরন।

 

কোম্পানীতে ডিলার (ফিলিং ষ্টেশন) নিয়োগ পদ্ধতি

            নাগরিকত্ব সনদ, ব্যাংক স্বচ্ছলতার সনদ, ট্রেড লাইসেন্স, টিআইএন সার্টিফিকেট, আবেদনকারীর সত্যায়িত ছবি, সাইট প্ল্যান, মৌজা ম্যাপ, প্রস্তাবিত জমির 

            দলিলের সত্যায়িত কপি সহকারে সংশ্লিষ্ট কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবরে আবেদন করতে হবে।

*          আবেদনপত্র পাওয়ার পর বিপিসি প্রণীত নীতিমালার আলোকে মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তা সরেজমিনে সাইট পরিদর্শন করে ফিলিং ষ্টেশন স্থাপনের সম্ভাব্যতা বাছাইপূর্বক ৩০(তিন) দিনের মধ্যে কোম্পানীর হেড অফিসে প্রতিবেদন পেশ করবে।

*          মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তার প্রতিবেদন ফিলিং ষ্টেশন স্থাপনের অনুকূলে না হলে আবেদনকারীকে তা ৭(সাত) দিনের মধ্যে অবহিত করা হবে।

*          উপরোক্ত প্রতিবেদন ফিলিং ষ্টেশন স্থাপনের অনুকূলে হলে ৩০(ত্রিশ) দিনের মধ্যে প্রাপ্ত প্রতিবেদন যাচাইপূর্বক ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ সংশ্লিষ্ট কোম্পানীর পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদনের জন্য বোর্ড সভায় উপস্থাপন করবে।

*          প্রস্তাব পরিচালনা পর্ষদের অনুমোদনের পর চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য ৩(তিন) দিনের মধ্যে বিপিসিতে প্রেরণ করা হবে।

বিপিসি কর্তৃক অনুমোদনের পর প্রস্তাবিত ডিলারকে স্থানীয় জেলা প্রশাসক থেকে অনাপত্তি সনদ গ্রহণ, বিস্ফোরক লাইসেন্স সংগ্রহ এবং সড়ক ও জনপথ বিভাগ থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতি গ্রহণপূর্বক নির্ধারিত ১(এক) বৎসরের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পাদনের জন্য ৭(সাত) দিনের মধ্যে পত্র প্রদান করা হবে।

*          নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নির্মাণ কাজ সম্পাদনের পর এবং কোম্পানী কর্তৃক চাহিদাকৃত সনদসমূহ প্রাপ্তির ১০(দশ) দিনের মধ্যে ফিলিং ষ্টেশন চালু করার জন্য ডিলারশীপ প্রদান করা হবে।

 

এজেন্সি/প্যাকড পয়েন্ট ডিলার নিয়োগ পদ্ধতিঃ

*          নাগরিকত্ব সনদ, বিস্ফোরক লাইসেন্স, এজেন্সী পয়েন্টের লে-আউট প্ল্যান্ট, আবেদনকারীর ছবি ট্রেড লাইসেন্স কপি, ব্যাংক সচ্ছলতার সনদের সত্যায়িত কপিসহ আবেদনপত্র কোম্পানীর বরাবরে দাখিল করতে হবে।

*          আবেদনপত্র পাওয়ার পর প্রস্তাবিত স্থান সরেজমিনে পরিদর্শন, ব্যবসায়িক সম্ভাব্যতা যাচাই বাছাই পূর্বক সংশ্লিষ্ট মাঠ কর্মকর্তা প্রতিবেদন ৩০(ত্রিশ) দিনের মধ্যে প্রদান করবে।

*          প্রাপ্ত প্রতিবেদন অনুকূলে হলে কোম্পানীর হেড অফিসে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহনের পর ৩০(ত্রিশ) দিনের মধ্যে ব্যবস্থাপনা পরিচালক কর্তৃক নিয়োগপত্র প্রদান করা হয়।

*          প্রাপ্ত প্রতিবেদন অনুকূলে না হলে ৭(সাত) দিনের মধ্যে আবেদনকারীকে অবহিত করা হবে।

 

কোম্পানী প্রদত্ত সেবাসমূহ

            ১।         পণ্যের গুণগতমান ও পরিমাপ নিশ্চিতকরণঃ

*          গ্রাহকগণকে নির্ভেজাল ও মানসম্পন্ন পণ্য সরবরাহ নিশ্চিতকরণের জন্য ডিপোসমূহে টেষ্টিং ল্যাবরেটরী স্থাপন।

*          ফিলিং ষ্টেশন হতে নিয়মিতভাবে পেট্রোলিয়াম পণ্যের নমুনা সংগ্রহ করে গুণগত মান পরীক্ষা করা ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

*          ফিলিং ষ্টেশন হতে বিক্রীত পণ্যের পরিমাপ যাচাইকরণ।

২।         সারা দেশে পেট্রোলিয়াম পণ্যের সময়মত প্রাপ্যতা নিশ্চিতকরণের জন্য বিতরণ ও বিপণনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

৩।         দেশের সর্বত্র ভোক্তা পর্যায়ে সঠিক মূল্যে মান-সম্পন্ন পেট্রোলিয়াম পণ্য প্রাপ্তি মনিটরিং করা।

৪।         কোম্পানীর প্রকৃত ব্যবসা পেট্রোলিয়াম পণ্য বিপণন হলেও বৈদেশিক মূদ্রা সাশ্রয়ী ও পরিবেশবান্ধব হওয়ায় ফিলিং ষ্টেশনসমূহে সিএনজি সুবিধা প্রদানের প্রয়োজনীয় সহায়তা প্রদান করা।

৫।         খরা মৌসুমে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পেট্রোলিয়াম পণ্যের বর্ধিত চাহিদানুযায়ী সরবরাহ নিশ্চিতকরণের জন্য চারটি আঞ্চলিক কন্ট্রোল সেল খোলা হয়। উক্ত কন্ট্রোল সেলের মাধ্যমে স্থানীয় প্রশাসনের সহযোগিতায় পেট্রোলিয়াম পণ্যের সরবরাহ ও মূল্য নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করা।

৬।         প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও আপদকালীন সময়ে দুর্যোগ লাঘবের লক্ষ্যে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে পেট্রোলিয়াম পণ্য সরবরাহ নিরবচ্ছিন্ন রাখার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

৭।         বিমানের জ্বালানী তেল সরবরাহ করে আকাশপথে যোগাযোগ অক্ষুন্ন রাখার ব্যবস্থা করা।

৮।         ইঞ্জিন/মেশিনের সুরক্ষার জন্য প্রস্ত্ততকারকের সুপারিশ অনুযায়ী সঠিক মানের ল্যুব অয়েল বিপণন করা।

৯।         সময়ে সময়ে সভা, সেমিনার, সিম্পোজিয়াম ইত্যাদির মাধ্যমে গ্রাহক ও ভোক্তা পর্যায়ে পেট্রোলিয়াম পণ্য ও লুব্রিকেন্টের গুণগতমান, ব্যবহারবিধি ও সুফল সম্পর্কে ধারণা প্রদান করা।

১০।        ভিজিল্যান্স টিমের মাধ্যমে বাজার হতে ল্যুব অয়েলের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার মাধ্যমে মান যাচাইকরণ ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা।

১১।        ল্যুব অয়েলের প্রয়োগবিধি, টেষ্টিং, কলকারখানায় সংরক্ষণ পদ্ধতি ও এই সংক্রান্ত উদ্ভূত যে কোন সমস্যা সমাধানের জন্য কারিগরী পরামর্শ প্রদান করা।

১২।        ক্যাটালগ, লিফলেট ইত্যাদির মাধ্যমে লুব্রিক্যান্টস প্রোডাক্টের পরিচিতিমূলক প্রচারণা।

 

 

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন এবং এর অঙ্গ প্রতিষ্ঠানসমূহের ঠিকানাঃ

 

১।         (ক)   বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন, প্রধান কার্যালয়, বিএসসি ভবন, সল্টগোলা রোড,

                   পোষ্ট বক্স নং-২০৫২, চট্টগ্রাম। পিএবিএক্স নংঃ ০৩১-৭১৬৩৩৬-৩৭, ফ্যাক্সঃ ০৩১-৭২০১৪৭, ৭২৪৯১০

 

            (খ)  বিপিসি লিয়াজোঁ অফিস, যমুনা ভবন, ২নং কাওরান বাজার, ঢাকা-১২১৫।

                  ফোন নংঃ ০২-৮১৮৩৫৫৮, ০২-৮১৮৯৬৪৭, ফ্যাক্সঃ ০২-৮১৮৯৫৫৭।

 

তেল বিপণন কোম্পানীঃ

২।         যমুনা অয়েল কোম্পানী লিমিটেড

যমুনা ভবন, আগ্রাবাদ বা/এ, পোষ্ট বক্স নং-৬৯৪, চট্টগ্রাম।

            পিএবিএক্স নংঃ ০৩১-৭২০১৮১-৩, ২৫২০১৩৪-৯, ফ্যাক্সঃ০৩১-৭১৩২৮৯ ।

 

৩।         পদ্মা অয়েল কোম্পানী লিমিটেড

 ষ্ট্র্যান্ড রোড, পোষ্ট বক্স নং-৪, চট্টগ্রাম।

 পিএবিএক্সঃ ০৩১-৬১৪২৩৫-৭, ৬৩৭৭৪৮-৯, ফ্যাক্সঃ ০৩১-৬১৮৩১২।

 

৪।         মেঘনা পেট্রোলিয়াম লিমিটেড

৫৮-৫৯, আগ্রাবাদ বা/এ, পোষ্ট বক্স নং-১০৮, চট্টগ্রাম।

পিএবিএক্স নংঃ ০৩১-৭১১৮৯১-৮, ফ্যাক্সঃ ০৩১-২৫১৪৬৬২।

 

অন্যান্য কোম্পানীঃ

৫।         ইস্টার্ণ রিফাইনারী লিমিটেড

            উত্তর পতেঙ্গা, চট্টগ্রাম।

পিএবিএক্সঃ ২৫০১২৬১-৭, ফ্যাক্সঃ ০৩১-২৫০১২৬৯।

 

৬।         এল পি গ্যাস লিমিটেড

            উত্তর পতেঙ্গা, চট্টগ্রাম।

পিএবিএক্সঃ ০৩১-২৫০১২১৮, ২৫০১২১৯, ২৫০১৫৮৫, ২৫০১৫৮৬, ফ্যাক্সঃ ০৩১-২৫০১২১৭।

 

৭।         ইস্টার্ণ লুব্রিকেন্টস ব্লেন্ডার্স লুব্রিকেন্টস লিমিটেড

ষ্ট্র্যান্ড রোড, পোষ্ট বক্স নং-৪, চট্টগ্রাম।

পিএবিএক্সঃ ৬১৪২৩৫-৭, ৬৩৭৭৪৮-৯, ফ্যাক্সঃ ০৩১-৬১৮৩১২।

 

৮।         স্ট্যান্ডার্ড এশিয়াটিক অয়েল কোম্পানী লিমিটেড

উত্তর পতেঙ্গা, চট্টগ্রাম।

পিএবিএক্সঃ ০৩১-২৫০১২৩৭ ফ্যাক্সঃ ০৩১-২৫০১২৩৮।

তথ্য অধিকার

বিজ্ঞপ্তি

আইন ও সার্কুলার